মেসি ব্যালন ডি’অর না জিতলে সেটি হবে কেলেঙ্কারি

এ বছর ব্যালন ডি’অর জেতার জন্য ফেবারিট মনে করা হচ্ছে চেলসির ইতালিয়ান মিডফিল্ডার জর্জিনহোকে। জাতীয় দলের হয়ে ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপ ও চেলসির হয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শিরোপা জিতেছেন তিনি। সেই জর্জিনহোও নাকি মনে করছেন, তার পরিবর্তে এবার লিওনেল মেসিরই ব্যালন ডি’অর জেতা উচিত। মেসি না জিতলে সেটি হবে এক প্রকার কেলেঙ্কারি। ইতালি জাতীয় দলের সাবেক ফুটবলার ক্রিস্টিয়ান ভিয়েরির সঙ্গে টুইচ চ্যানেলে আলাপচারিতায় এই তথ্য জানান আরেক সাবেক ফুটবলার অ্যান্তোনিও কাসানো।

সাধারণত আন্তর্জাতিক ফুটবল ও ক্লাব ফুটবলে পারফরম্যান্সের ওপর বিবেচনা করে ফ্রান্সভিত্তিক ফুটবল সাময়িকী প্রতি বছর ব্যালন ডি’অর পুরস্কার দিয়ে থাকে। পাশাপাশি দলগত ও ব্যক্তিগত অর্জনও বিবেচনার অন্তর্ভুক্ত হয় সম্মানজনক এই স্বীকৃতি পাওয়ার পেছনে। এ বছর জর্জিনহো জাতীয় দল ইতালির হয়ে ইউরোর স্বাদ নিয়েছেন। তার আগে চেলসির হয়ে জিতেছিলেন ইউরোপের ক্লাব ফুটবলের সবচেয়ে মর্যাদাবান ট্রফি চ্যাম্পিয়ন্স লিগ। তাই ফুটবলবোদ্ধারা মনে করছিলেন তিনিই এবার ব্যালন ডি’অর পেতে চলেছেন। কিন্তু জর্জিনহো নিজেই বলছেন মেসির কথা।

ইতালি জাতীয় দলের সাবেক ফুটবলার অ্যান্তোনিও কাসানোর সঙ্গে আলাপচারিতায় নাকি এমনটি বলেন জর্জিনহো। কাসানো মনে করেন, চেলসি মিডফিল্ডার ব্যালন ডি’অর পেয়ে গেলে সেটি সঠিক বাছাই হবে না। জর্জিনহোকে কাসানো বলেন, এবার মেসির ব্যালন ডি’অর জেতা উচিত। তোমার এই পুরস্কার পাওয়া হবে না। জবাবে সম্মতি প্রকাশ করেন ইউরো জয়ী তারকা। ‘আমি এই পুরস্কার পেয়ে গেলে সেটি কেলেঙ্কারি বৈ ভিন্ন কিছু হবে না। এটা মেসির শোকে সেই উঠা উচিত।’

কাসানো বলছেন, এমন সত্য স্বীকার করে নেওয়ার জন্য জর্জিনহোর প্রতি সম্মান না দেখিয়ে পারছেনই না। ‘এখন তার প্রতি আমার শ্রদ্ধা বেড়ে গেছে। আমরা পুরো ৯০ মিনিটের মতো কথা বলেছি। সে ব্যতিক্রম একজন ব্যক্তিত্ব। খুবই জ্ঞানী আর ভদ্র।’

জর্জিনহো এটাও বলেছেন যে, তিনি নিজেও এই পুরস্কার পেয়ে যেতে পারেন। তার ভাষ্য, ‘আমি ব্যালন ডি’অর জিতে যেতে পারি। সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা যদি দলগত অর্জনকে গুরুত্ব দেয়। কারণ আমি দুটো ট্রফি জিতেছি, মেসি জিতেছে একটা।’ তিনি যোগ করেন, ‘প্রত্যেকেরই স্বপ্ন থাকে, আমারও নেই বললে সেটি সঠিক হবে না। তবুও মেসির সঙ্গে আমি নিজেকে তুলনা করতে পারি না। শুধু মেসি কেন, ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো, নেইমার, এরা প্রত্যেকেই নিজেদের অনন্য উচ্চতায় নিয়ে গেছে। তবুও সব কিছু নির্বাচনের মানদণ্ডের ওপর নির্ভর করছে।’

উল্লেখ্য, মেসি এ বছর জাতীয় দলের হয়ে কোপা আমেরিকা শিরোপা জিতেছেন। ব্যক্তিগত পারফরম্যান্সেও উজ্জ্বল ছিলেন তিনি। টুর্নামেন্টে ৪টি গোল এসেছে তার পা থেকে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *